রমযানে ওজন কমাতে করণীয়

by Dr Tasnim Jara
Daily Life
Published: 3 months ago
|Updated: 3 months ago

অনেকেই ওজন কমানের জন্য রমযান মাসকে বেঁছে নেয়। কারন তারা মনে করেন রোজা রাখলেই ওজন কমে যাবে। তাই তারা রোজা রাখেন ঠিকই, কিন্তু ইফতারির পর প্রচুর পরিমানে ভাজাপোড়া, তৈলাক্ত, ভারী ও মিষ্টি খাবার খেয়ে ফেলেন। আবার অনেকে ওজন কমানের জন্য সেহরি খাওয়াই বাদ দিয়ে দেন। কেউ কেউ আবার ভাবেন অতিরিক্ত শরীরচর্চা ও ব্যায়াম করে ওজন কমিয়ে ফেলবে। আসলে এগুলোর সবই আমাদের ভুল ধারণা। এ কাজগুলো করলে ওজন না কমে বরঞ্চ তা আরও বেড়ে যায় ও তৈরি হয় নানামুখী স্বাস্থ্য জটিলতা। তাই আজ আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করবো রমযানে ওজন কমাতে করণীয় - ইফতার ও সেহেরিতে কি খাবেন? কতটুকু পানি খাওয়া প্রয়োজন? কখন কতখানি ব্যায়ম করবেন- এই বিষয়গুলো।

5

Tasks

১। রমযানে ওজন কমাতে ইফতারের খাবারঃ ক) খেজুর দিয়ে আপনার ইফতার শুরু করুন। কারন এটি আপনাকে দ্রুত সারা দিনের ধকল কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করবে। তাছাড়াও যারা রমযান মাসে কোষ্ঠকাঠিন্যে ভোগেন, খেজুর তাদের জন্য খুবই উপকারী। খ) চিনি দিয়ে বানানো শরবতের পরিবর্তে শুধু পানি পান করুন। সম্ভব হলে থাকলে ডাবের পানি পান করুন। গ) বাজার থেকে কিনে আনা ফলের জুস না পান করে বাসায় বানানো জুস পান করুন। তবে জুস তৈরি করার সময় চিনি ব্যবহার করবেন না। ঘ) খেজুর এবং পানীয়ের পর্ব শেষ হলে, আপনার আশেপাশে পাওয়া যায় এমন ফলমূল খান। যেহুতু সারা মাস ধরে ফলমূল খাবেন তাই আপনার সাধ্য ও সামর্থ্য অনুযায়ী একেক দিন একেক ধরনের ফল খাওয়ার চেষ্টা করুন। ঙ) সকল ধরনের ভাজাপোড়া জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলুন।

Daily 1x

২। রমযানে ওজন কমাতে সন্ধ্যা/রাতের খাবারঃ যারা রমযানে ওজন কমাতে চান, তারা ইফতারের পর পরেই আর কিছু খাবেন না। কিছুক্ষন বিরতি নিন এবং হাঁটাহাঁটি করুন। নামাজ শেষ করে তারপর সন্ধ্যা/রাতের খাবার খেতে যান। ক) আপনার খাবারের প্লেটটা মনে মনে ৪ ভাগে ভাগ করুন। সবজি আর ফলমূল নিন অর্ধেক প্লেট। আর বাকি অর্ধেকের অর্ধেক অর্থাৎ ৪ ভাগের ১ ভাগ নিন লাল চালের ভাত বা রুটি। আর বাকিটাতে নিন মাছ/মাংস ও ডাল। খ) প্লেটে খাবারের পরিমান হিসাব করার সময় ফলমূল আপনার প্লেটে নিয়ে সবজির সাথে মেশাতে হবে না। অন্য কোন পাত্রে ফলমূল নিয়ে নিন। শুধু খেয়াল রাখবেন সবজি আর ফলমূল মিলিয়ে যেন প্লেটের অর্ধেকটা জায়গা পূর্ন করে। এমনকি ইফতারিতে যে ফলমূল খেয়েছেন তা ও এখানে ধরতে পারেন। গ) সবজি এবং মাছ/মাংস রান্নায় অতিরিক্ত পরিমানে তেল ব্যবহার করবেন না।

Daily 1x

৩। রমযানে ওজন কমাতে পানির পরিমানঃ ক) ইফতার থেকে সেহেরি পর্যন্ত কমপক্ষে ১০ গ্লাস বা ২.৫ লিটার পানি পান করুন। খ) আপনি যদি তারাবির নামাজ পড়েন তাহলে সাথে একটি পানির বোতল নিয়ে নিন। নামাজের ফাঁকে ফাঁকে অল্প করে পানি পান করে নিন। গ) পানির পাশাপাশি পানি জাতীয় খাবার যেমন- তরমুজ, শশা, টমেটো ইত্যাদি খেতে পারেন। ঘ) চা বা কফি পান করার অভ্যাস এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করুন।

Daily 1x

৪। রমযানে ওজন কমাতে সেহেরির খাবারঃ ক) সেহেরির সময় অল্প পরিমানে লাল চালের ভাত খান। কারন এটি অনেকক্ষণ পেটে থাকবে। ভাতের সাথে কম মশলা ও তেল দিয়ে রান্না করা সবজি, মাছ/মাংস ও ডাল খেতে পারেন। খ) তাছাড়া, আপনি ওটস (Oats) খেতে পারেন। ওটস কেনার সময় লক্ষ রাখুন প্যাকাটের উপর হোল গ্রেইন ওটস (Whole Grain Oats) লেখা আছে কি না। গ) বাদাম, চিয়া সিডের শরবত (Chia Seeds), বিভিন্ন ধরনের ফলমূল যেমন- কলা, আপেল, কমলা, সিদ্ধ ডিম ইত্যাদি খেতে পারেন। ঘ) যে ধরনের খাবার খেলে আপনার গলা ও বুক জ্বলে অর্থাৎ অ্যাসিডিটি হয় সেগুলো এড়িয়ে চলুন।

Daily 1x

৫। রমযানে ওজন কমাতে শরীরচর্চা ও ব্যায়ামঃ ক) সন্ধ্যার পর আধা ঘন্টা দ্রুত গতিতে হাঁটুন। সম্ভব হলে দৌড়ান। সপ্তাহে সব মিলিয়ে কমপক্ষে ২.৫ ঘন্টা হাঁটার ও দৌড়ানোর লক্ষ রাখুন। খ) যারা ইফতারের আগে ব্যায়াম করতে চান, তারাও ব্যায়াম করতে পারেন। গ) সকালে আপনার ইয়োগার (Yoga) অভ্যাস থাকলে সেটি সময়মত করুন।

Daily 1x

Tags
avatar
Dr Tasnim Jara

0 Comments

Looking forward to your feedback